বোকা বানানোর জোকস


mad-jokes-bangla

বোকা বানানোর জোকস


১) সবাই রাতে দেয়, কেও সময় পেলে দিনেও দেয়,
টানা ১ ঘন্টা আবার ২ ঘন্টা ও দেয়, কেও কেও সারা রাত দেয়,
কেও আবার সকালেও দেয়!
দেওয়ার সময় পুরা গরম হইয়া যায় । .
এভাবেই সবাই মোবাইল চার্জ দেয়! হে হে হে ।"

২) অনেক মেয়ে "মুলা" দিয়ে করে,
আবার অনেক মেয়ে "গাজর" দিয়ে ও করে,
আবার অনেক মেয়ে "শষা" দিয়ে ও করে।
আবার সব কিছু একসাথে দিয়ে ও করে।
কি করে জানো ??
আরে সালাদ তৈরী করে

৩) সে আসলো, আমার উপর বসলো,
আমাকে জড়িয়ে ধরলো, পরে কামর, চুমু দিল।
তারপর নিজের প্রয়োজন মিটিয়ে চলে গেল।
খারাপ চিন্তা ভাবনা বাদ দিয়ে ভালো চিন্তা ভাবনা কর।

ঐটা একটা মশা ছিল।

৪) যখন তোমার একা লাগবে,
তুমি চারদিকে কিছুই দেখতে পাবে না,
দুনিয়া টা ঝাপসা হয়ে আসবে।
তখন তুমি আমার কাছে এসো।
তোমাকে চোখের ডাক্তার দেখাবো।

৫) ফুলের মাঝে ভ্রমর আসে,
নদীর ওপর নৌকা ভাসে,
শিশির নাচে সবুজ ঘাসে,
রাতের মাঝে জোছনা হাসে।
আর কিছু মেয়েদের ভালোবাসায় ফরমালিন আছে।

৬) অদ্ভুত কিছু আবেগ, অজানা কিছু অনুভূতি।
অসম্ভব কিছু ভালো লাগা, হয়তো বা কষ্টের ভয়,
একাকীত্ব নিরবতা।
এই নিয়ে আমাদের টয়লেটে বসে থাকা।

৭) যেখানে ভালোলাগা, সেখানেই ভালোবাসা।
যেখানে ভালোবাসা, সেখানেই প্রেম।
যেখানে প্রেম, সেখানেই ব্যাথা।
আর যেখানে ব্যাথা, সেখানেই টাইগার বাম মলম।

৮) কি দিন আইছে রে, বাতাস বইতেছে,
পাখি গান গাইতেছে, গরু ঘাস খাইতেছে,
জিনিয়াসরা এস.এম.এস করতাছে,
আর আবালটায় এস.এম.এস পড়তাছে।

৯) এক দিন তোমার জীবনে একটি সুন্দর মেয়ে আসবে।
সে তোমাকে ভালোবাসবে KISS করবে।
আবার তোমাকে জড়িয় ধরে বলবে
আব্বু আমাকে একটা চকলেট কিনে দাও।

১০) জল পড়ে পাতা নড়ে।মহা গাঁধা এসএমএস পড়ে।
ওরে গাঁধা রাগিস না। বোকার মতো হাসিস না।
এই এসএমএস পড়বি যত, বুদ্ধি হবে গাঁধার মতো।

১১) এখন আমার হাতে এক বোতল বিষ।
এত জ্বালা আমার সহ্য হয় না।
জানি এটা পাপ। এত যন্ত্রণা আর ভালো লাগে না।
তাই আমি যাচ্ছি .
ইদুর মারতে।

১২) চোখ বুজে দেখো স্বপ্ন দেখো কি না,
পা বাড়িয়ে দেখো পথ খুজে পাও কি না,
মন বাড়িয়ে দেখো কেউ ভালোবাসে কি না,
হাত বাড়িয়ে দেখো
কেউ পয়সা দেয় কিনা।

১৩) একটি ছাগলের চারটি বাচ্চা হয়েছে। একটি বাচ্ছা তার মাকে জিগাসা করল, মা আমার বাবা কোথায়? ছাগলটা বল্ল চুপ কর তোর বাবা এখন SMS পরছে।

১৪) এক বছর পর দেখলাম, তারপর ধরলাম,
ভালো লাগল একটু টিপলাম,
নরম লাগল তারপর একটু
চুষে দিলাম মজা লাগল।
তাইতো বলি বছরের প্রথম
পাকা আমের স্বাদ-ই আলাদা

১৫) নারী তুমি করিওনা রুপের বড়াই, সবাইতো জানে তোমার প্রিয় বনধু রান্না ঘরের কড়াই। যতই দেখাও তুমি রুপের ঝর্ণা,করতে হবে তোমাকে দরকারি রান্না..

১৬) এই চলোনা ওই দিকে নির্জনে যাই Plz না বলোনা।
আরে এত করে বলছি তাও যাবে না ?
.ওই বেটা না গেলে বল অন্য রিকশা ডাকি।

১৭) কপাল আর লুঙ্গীর মধ্যে মিল কোথায়? দুটোই যেকোনো সময় খুলে যেতে পারে !কপাল খুললে পৌষ মাস,আর লুঙ্গী খুললে সর্বনাশ।

১৮) আম গাছে আম ধরে নারিকেল গাছে ঢাব ছেলেদেরকে মিসকল মারা মেয়েদের সভাব গাছের বল লতাপাতা মাছের বল পানি এ যুগের মেয়েরা চায় পঁয়সাওয়ালা স্বামী,.,

১৯) মেয়ে:
-তুমি একটা বদ।

ছেলে:
-তুমি কি ভালো?

মেয়ে:
-হ্যা আমি ভালো।

ছেলে:
-তার মানে তুমি বদ না?

মেয়ে:
-হ্যা, আমি বদ না।

ছেলে:
-RFL বদনা?

মেয়ে:
-না, মানে আমি বদ না।

ছেলে:
সেটাই তো বললাম তুমি RFL বদনা।

২০) চরম ছড়াঃ
ছোট ছোট ছেলে- মেয়ে প্রেমে পড়েছে । পার্কে গিয়ে তারা আবার ধরা খেয়েছে । কে দেখেছে কে দেখেছে টিচার দেখেছে । এবার বলো টিচার কেন .......... পার্কে গিয়েছে...........??????

২১) আপনে একটা গরু না, একটা ছাগল, না একটা ভেড়া. না না না বাজার থেকে একটা দেশী মুগরী কিনে আমাকে দাওয়াত দিয়ে খাওয়াবেন।

২২) তুমি বীর , তুমি দুর্জয়, তুমি বাঙ্গালি, তুমি সাহসী, তোমার বুকে অনেক জোর, তুমি আমাদের গ্রাম' এর মুরগী চোর!

২৩) আমি ইট, তুমি খোয়া; আমি খই, তুমি মোয়া। আমি ফুল, তুমি কাঁটা; আমি গম, তুমি আটা। আমি নৌকা, তুমি ব্রীজ; আমি মাছ, তুমি ফ্রিজ। আমি রাত, তুমি ভোর; আমি ভালো, তুমি চোর। আমি বৃক্ষ, তুমি ফল; আমি নদী, তুমি জল। আমি মেঘ, তুমি বৃষ্টি; আমি চক্ষু, তুমি দৃষ্টি। আমি গুল্ম, তুমি তরু; আমি চতুর, তুমি ভীরু। আমি বধির, তুমি বোবা; আমি সাগর, তুমি ডোবা আমি খাতা, তুমি কলম; আমি ট্যাবলেট, তুমি মলম। আমি কান্না, তুমি হাসি; আমি টাটকা, তুমি বাসি। আমি বিষন্ন, তুমি হতাশা; আমি কদমা, তুমি বাতাসা। আমি কাঁথা, তুমি বালিশ আমি ব্যথা । তুমি মালিশ। আমি হাত, তুমি পাও; আমি নগদ, তুমি ফাও........

২৪) তুমি যমুনা হলে হব.. অামি যমুনা ব্রিজ.. তুমি চায়ের কাপ হলে হব চায়ের পিরিচ .. তুমি জীবন হলে হব অামি প্রেম.. তুমি দরজা হলে হব অামি দরজার ফ্রেম।।।।।।।..

২৫) ওরে মন কথা শোন, যাবি চলে বান্দরবন, বানরের মত সবাই ঝুলবি নাকি বল? ওরে বাঁচাও আমায়, একটা বানর আমার পিছু নিয়েছে। সেই বানরতা এস এম এস পড়তেছে।

২৬) আমি চোর!আমার বাপ চোর!আমার দাদা চোর!আমার নানা চোর!আমার ১৪ গোষ্টি চোর!. ...... ...... .."আরে বোকা আস্তে পড়ো।মানুষশুনলে তোমাকে পিটাবে !! !


২৭) ও আমার ভাবি গো,তোমার হাতে চাবি গো।শুন মনের কথা গো,ছোট এক্কান দাবি গো।তোমার বইনরে ভালা ফাই,বউ কইরা আনতাম ছাই।মাইরে তুমি বুজাই কওবিয়ার মাত ফাটাই দেও।আদর কইরা রাখমু তাইরেআমার মনর ছোট্ট ঘরে।গয়না চুড়ি শাড়ি দিমু,পাঁচ কেয়ার জমি দিমু।আরো দিমু ভালবাসাকরমু পুরন হক্কল আশা।

২৮) রান্না ঘরে রান্না করিচোখে লাগে ধোঁয়াএমন সময় বন্ধু এসেগালে দিল চুমা !!

২৯) আমাদের ভালবাসায় হয়ে গেল ঘাস।খেয়া গেল গরু দিয়ে গেল বাশঁ।

৩০) এল শীত তুমার দারে,, একলা তুমি থাক নারে… সাথে রাখ শুধু তারে,, ভালবাস তুমে যারে… এখন শুধু তার কাম,, জানি আমি তার নাম… সে তুমার সম্বল,, তার নাম কম্বল…

৩১) তুমি আমার অচিন পাখি তোমার নাম টিয়া সুন্দর একটা বাদর পেলে তোমার দিতাম বিয়া

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য